ঢাকা থেকে রাজশাহী ট্রেনের সময়সূচি ও ভাড়া

সারসংক্ষেপ

রাজশাহী পদ্মা নদীর তীরে অবস্থিত উত্তরবঙ্গের বৃহত্তম এবং বাংলাদেশের সবচেয়ে সবুজ ও পরিচ্ছন্ন শহর। আপনি যদি ঢাকা থেকে ট্রেনে রাজশাহী যেতে চান, তাহলে ঢাকা থেকে রাজশাহী ট্রেনের সময়সূচি এবং টিকেটের মূল্য সম্পর্কে আপনার জেনে নেয়া দরকার। এখানে সেটাই তুলে ধরা হয়েছে। সেই সঙ্গে রয়েছে আরও কিছু সম্পূরক তথ্য এবং ছবি।

এখানে ঢাকা-রাজশাহী ট্রেনের সময়সূচি এবং ট্রেন টিকেটের মূল্য সংক্রান্ত তথ্যাদি বাংলাদেশ রেলওয়ের সর্বশেষ পরিমার্জিত নথি অনুসারে সন্নিবেশিত হয়েছে। অবশ্য রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ যেকোনো সময় আরও পরিবর্তন আনতে পারে। তেমন কিছু ঘটলে আমরাও সঙ্গে সঙ্গে এই ট্রেন সময়সূচী এবং টিকিটের মূল্য তালিকা হালনাগাদ করব।

Dhaka to Rajshahi Train Schedule and ticket price 2020
ঢাকা টু রাজশাহী ট্রেন বনলতা এক্সপ্রেস।

বাংলাদেশ রেলওয়ের জরিপ অনুসারে, রেলপথে ঢাকা থেকে রাজশাহীর দূরত্ব ৩৪৩ কিলোমিটার। তবে সড়কপথে ঢাকা থেকে রাজশাহীর দূরত্ব ২৫৮ কিলোমিটার, বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন-এর হিসেব মতে।

ঢাকা থেকে রাজশাহী রুটে বর্তমানে ৪টি আন্তঃনগর ট্রেন চলাচল করছে। ট্রেনগুলি এই দূরত্ব অতিক্রম করতে সময় নেয় গড়ে সাড়ে ৫ ঘণ্টা। কিন্তু রেলগাড়িতে আপনার সময়টা ভালোই কাটবে। কেননা ঢাকা-রাজশাহী রুটের ট্রেনগুলিতে আধুনিক সমস্ত সুযোগ-সুবিধা রয়েছে। একেবারে কম দামের সুলভ থেকে শুরু করে অত্যন্ত বিলাসবহুল এসি কেবিন পর্যন্ত সব মানের আসনই রয়েছে। খাবারের ক্যান্টিন আছে, নামাযের স্থান আছে, পরিষ্কার টয়লেট আছে এবং নিরাপত্তার পর্যাপ্ত ব্যবস্থা আছে। এইসব দিক বিবেচনা করলে অন্যান্য গণপরিবহনের তুলনায় ঢাকা থেকে রাজশাহীতে ট্রেনে যাতায়াত করাই ভালো বলে মনে হয়।

ঢাকা-রাজশাহী ট্রেনের গতিপথ

ঢাকা থেকে রাজশাহী পর্যন্ত রেলপথটা বাংলাদেশের অন্যতম দীর্ঘ রেলপথ। এই ৩৪৩ কিলোমিটার লম্বা রেলপথের স্থানে স্থানে অনেক স্টেশন ও বিরতিস্থল রয়েছে। তালিকাটা ছোট নয়। তাই আমরা ঢাকা থেকে রাজশাহী রেলপথের সমস্ত সাবস্টেশন এবং স্টপেজের বিশদ রুটম্যাপ রয়েছে এমন একটি পিডিএফ ফাইল এখানে জুড়ে দিলাম। আপনি ফাইলটি ডাউনলোড করে ঢাকা টু রাজশাহী ট্রেনের বিস্তারিত গতিপথ দেখে নিতে পারেন।

কোনও রেলপথের সব ট্রেন এর পথিমধ্যে থাকা সকল স্টেশনে থামে না। সেজন্যে আমরা এখানে ঢাকা-রাজশাহী ট্রেন রুটের প্রসিদ্ধ ও উল্লেখযোগ্য স্টেশন এবং স্টপেজগুলির একটি তালিকা দিচ্ছি। ঢাকা টু রাজশাহী রুটে চলাচলকারী বেশিরভাগ ট্রেন এই স্টেশনগুলোয় দু’-তিন মিনিট করে বিরতি নেয়।

এই হলো ঢাকা থেকে রাজশাহীগামী ট্রেনগুলির স্টেশনের তালিকা। এতে ঢাকার কমলাপুর প্রারম্ভিক স্টেশন থেকে গন্তব্যের রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশন পর্যন্ত রেলপথের মাঝখানে নিম্নলিখিত ১১টি বিরতিস্থল রয়েছে:

ঢাকা বিমানবন্দর রেলস্টেশন, জয়দেবপুর জংশন, টাঙ্গাইল, বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব জংশন, শহীদ মনসুর আলী, উল্লাপাড়া, বড়াল ব্রিজ, চাটমোহর, ঈশ্বরদী বাইপাস, আবদুলপুর জংশন এবং সারদা রোড।

ঢাকা টু রাজশাহী ট্রেনের তালিকা

পরিচিতি, সময়সূচি, স্টপেজ
১. সিল্কসিটি এক্সপ্রেস:

সিল্কসিটি এক্সপ্রেস (ট্রেন নং ৭৫৩/৭৫৪) বাংলাদেশের দ্রুততম ট্রেন হিসেবে পরিচিত। এটি একটি আধুনিক এবং বিলাসবহুল আন্তঃনগর ট্রেন। ট্রেনটি রাজধানী ঢাকা থেকে দেশের অন্যতম প্রধান শহর রাজশাহী পর্যন্ত চলাচল করে।

সময়সূচি: সিল্কসিটি এক্সপ্রেস ট্রেনটি রোববার বাদে সপ্তাহের বাকি ৬ দিন ঢাকা-রাজশাহী রুটে চলাচল করে। এটি ঢাকার কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন থেকে দুপুর ২টা ৪৫ মিনিটে ছেড়ে যায় এবং রাজশাহীতে পৌঁছায় রাত ৮টা ৩৫ মিনিটে।

বিরতি: সিল্কসিটি এক্সপ্রেস ট্রেনটি ঢাকা থেকে রাজশাহী পর্যন্ত ৩৪৩ কিলোমিটার দীর্ঘ যাত্রাপথে মোট ১২টি জায়গায় বিরতি নেয়। স্টপেজগুলি হলো:

  • ঢাকা বিমানবন্দর রেলস্টেশন,
  • জয়দেবপুর জংশন,
  • মির্জাপুর,
  • টাঙ্গাইল,
  • বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব জংশন,
  • শহীদ এম মনসুর আলি,
  • জামতৈল জংশন,
  • উল্লাপাড়া,
  • বড়াল ব্রিজ,
  • চাটমোহর,
  • ঈশ্বরদী বাইপাস, এবং
  • আবদুলপুর জংশন।
২. পদ্মা এক্সপ্রেস:

পদ্মা এক্সপ্রেস (ট্রেন নং ৭৫৯/৭৬০) হলো বাংলাদেশ রেলওয়ে কর্তৃক পরিচালিত ঢাকা থেকে রাজশাহী রুটের অন্যতম বিলাসবহুল আন্তঃনগর ট্রেন। এতে আরামদায়ক এসি স্লিপার এবং খাবার গাড়িসহ একটি আধুনিক ট্রেনের সমস্ত সুযোগ-সুবিধা রয়েছে।

সময়সূচি: পদ্মা এক্সপ্রেস আন্তঃনগর ট্রেনটি মঙ্গলবার বাদে সপ্তাহের বাকি ৬ দিন ঢাকা-রাজশাহী রুটে যাত্রী আনা-নেয়া করে। ট্রেনটি রাত ১১টায় ঢাকার কমলাপুর রেলস্টেশন থেকে ছেড়ে যায় এবং রাজশাহী শহরে পৌঁছায় ভোর সাড়ে ৪টায়।

বিরতি: পদ্মা এক্সপ্রেস ট্রেনটি তার যাত্রাপথে মোট ১১টি স্থানে যাত্রাবিরতি গ্রহণ করে। স্টপেজগুলি নিম্নরূপ:

  • ঢাকা বিমানবন্দর রেলস্টেশন,
  • জয়দেবপুর জংশন,
  • টাঙ্গাইল,
  • বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব জংশন,
  • শহীদ এম মনসুর আলি,
  • উল্লাপাড়া,
  • বড়াল ব্রিজ,
  • চাটমোহর,
  • ঈশ্বরদী বাইপাস,
  • আবদুলপুর জংশন, এবং
  • সারদা রোড।
৩. ধূমকেতু এক্সপ্রেস:

ধূমকেতু এক্সপ্রেস (ট্রেন নং ৭৬৯/৭৭০) হলো বাংলাদেশ রেলওয়ে পরিচালিত ঢাকা-রাজশাহী রুটের তৃতীয় বিলাসবহুল আন্তঃনগর ট্রেন। ট্রেনটিতে ৮টি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত চেয়ার কোচ, ৭টি নন-এসি কোচ, একটি ড্রাইভার গাড়ি এবং গার্ড ব্রেকসহ ২টি খাবার গাড়ি রয়েছে। ধূমকেতু এক্সপ্রেস ট্রেনটি রাজধানী থেকে ৩৪৩ কিলোমিটার দূরের রাজশাহী পৌঁছাতে ৫ ঘন্টা ৪০ মিনিট সময় নেয়।

সময়সূচি: ধূমকেতু এক্সপ্রেস আন্তঃনগর ট্রেনটি ঢাকার কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন থেকে ভোর ৬টায় ছেড়ে যায় এবং রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনে পৌঁছায় সকাল ১১টা ৪০ মিনিটে। বৃহস্পতিবার হলো ধূমকেতু এক্সপ্রেসের সাপ্তাহিক বন্ধের দিন।

বিরতি: ধূমকেতু এক্সপ্রেস ট্রেন (৭৬৯) ঢাকা থেকে রাজশাহী যাবার পথে মোট ১২টি সাব-স্টেশনে বিরতি নেয়। তবে রাজশাহী থেকে ঢাকায় (৭৭০) যাবার পথে এটি বিরতি নেয় মাত্র ৭টি স্টেশনে। স্টপেজগুলি হলো:

  • ঢাকা বিমানবন্দর রেলওয়ে স্টেশন,
  • জয়দেবপুর জংশন,
  • টাঙ্গাইল (শুধু ৭৬৯),
  • বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব জংশন,
  • শহীদ এম মনসুর আলী,
  • জামতৈল জংশন (শুধু ৭৬৯),
  • উল্লাপাড়া (শুধু ৭৬৯),
  • বড়াল ব্রিজ,
  • চাটমোহর,
  • ঈশ্বরদী বাইপাস (শুধু ৭৬৯),
  • আবদুলপুর জংশন, এবং
  • আড়ানী (শুধু ৭৬৯)।
4. বনলতা এক্সপ্রেস:

বনলতা এক্সপ্রেস (ট্রেন নং ৭৯১-৭৯২) হলো বাংলাদেশ রেলওয়ের একটি বিরতিহীন এবং আধুনিক আন্তঃনগর ট্রেন। এটি ঢাকা থেকে রাজশাহী হয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পর্যন্ত চলাচল করে। একটি বিরতিহীন ট্রেন হিসেবে বনলতা এক্সপ্রেস ঢাকা-রাজশাহী রুটের অন্যান্য ট্রেনের মতো এত বেশিবার মাঝপথে থামে না, ফলে ঢাকা-রাজশাহী যাত্রীদের কাছে ট্রেনটি সবচেয়ে জনপ্রিয় ট্রেন।

সময়সূচি: বনলতা এক্সপ্রেস বিরতিহীন আন্তঃনগর ট্রেন ঢাকার কমলাপুর রেলস্টেশন থেকে দুপুর ১টা ৩০ মিনিটে ছেড়ে যায় এবং রাজশাহীতে পৌঁছায় সন্ধ্যে ৬টা ৩৫ মিনিটে। লক্ষণীয়, শুক্রবারে বনলতা এক্সপ্রেস চলে না, এ দিন এর সাপ্তাহিক ছুটির দিন।

বিরতি: বনলতা এক্সপ্রেস আন্তঃনগর ট্রেনটি ঢাকা টু রাজশাহী রুটের একমাত্র বিরতিহীন ট্রেন, এটি ঢাকা বিমানবন্দর রেলস্টেশন ছাড়া এর দীর্ঘ যাত্রাপথে আর কোথাও থামে না।

ঢাকা টু রাজশাহী ট্রেনের সময়সূচি

ওপরে যেমন সবিস্তারে বলা হয়েছে, ঢাকা টু রাজশাহী রুটে ৪টি আন্তঃনগর ট্রেন চলাচল করে। সেগুলো হলো: সিল্কসিটি এক্সপ্রেস, পদ্মা এক্সপ্রেস, ধূমকেতু এক্সপ্রেস এবং বনলতা এক্সপ্রেস। এই ট্রেনগুলির প্রত্যেকটিই সপ্তাহে ৬ দিন চলে এবং ১ দিন বন্ধ থাকে। ঢাকা থেকে রাজশাহী রুটের এ চারটি ট্রেনের ছাড়ার সময়, পৌঁছার সময় এবং ছুটির দিনের সময়সূচি নিচের সারণীতে দেখানো হলো।

ঢাকা-রাজশাহী ট্রেনের সময়সূচি-২০২১

ট্রেনের নামপ্রস্থানআগমনবন্ধ
৭৫৪ - সিল্কসিটি এক্সপ্রেসবি. ০২:৪৫বি. ০৮:৩৫রবি
৭৫৯ - পদ্মা এক্সপ্রেসবি. ১১:০০স. ০৪:৩০মঙ্গল
৭৬৯ - ধূমকেতু এক্সপ্রেসস. ০৬:০০স. ১১:৪০বৃহস্পতি
৭৯২ - বনলতা এক্সপ্রেসবি. ০১:৩০বি. ০৬:৩৫শুক্র
Dhaka to Rajshahi Train Schedule and Ticket Price 2021
ঢাকা থেকে রাজশাহী ট্রেনের সময়সূচি-২০২১।

ঢাকা থেকে রাজশাহী ট্রেনের টিকেটের মূল্য

ঢাকা-রাজশাহী ট্রেনের সময়সূচি জেনে নেবার পরে এবার আমরা দেখব এ রুটে ট্রেনের টিকেটের মূল্য কত। এখানে বাংলাদেশ রেলওয়ে কর্তৃক প্রকাশিত মূল্যতালিকা অনুযায়ী ঢাকা থেকে রাজশাহীগামী ৪টি আন্তঃনগর ট্রেন সিল্কসিটি এক্সপ্রেস, বনলতা এক্সপ্রেস, পদ্মা এক্সপ্রেস এবং ধূমকেতু এক্সপ্রেসের টিকিটের মূল্য দেখানো হলো। ট্রেনগুলিতে বিভিন্ন মানের আসন রয়েছে। প্রদর্শিত আসনগুলি থেকে আপনি আপনার পছন্দমতো যেকোনো আসনের টিকেট কাটতে পারেন।

ঢাকা-রাজশাহী ট্রেনের টিকেট মূল্য-২০২১

আসনের শ্রেণীটিকেটের মূল্য
শোভন৩৪০ টাকা
স্নিগ্ধা৫৭০ টাকা
এসি সিট৬৮০ টাকা
এসি কেবিন১০২০ টাকা

ঢাকা-রাজশাহী ট্রেনের অনলাইন টিকেট

ট্রেনে ঢাকা থেকে রাজশাহী ভ্রমণের জন্যে আগেভাগেই ট্রেনের টিকেট কিনতে সশরীরে রেলস্টেশনে যাওয়া এখন আর অনিবার্য নয়, কেননা এখন অনলাইনে ট্রেনের টিকেট বুকিংয়ের সুবিধা চালু হয়েছে। কাজেই আপনি নিজের বাড়িতে বসে থেকেই খুব সহজে আপনার কাঙ্ক্ষিত গন্তব্যের ট্রেন টিকেট নিশ্চিত করতে পারেন। কীভাবে অনলাইনে ট্রেনের টিকেট কাটতে হয়, সে সম্পর্কে আমরা ধাপে ধাপে সম্পূর্ণ প্রক্রিয়াটি দেখিয়েছি। লেখাটি এই: বাংলাদেশ রেলওয়ে টিকিট বুকিং অনলাইন।

Bangladesh Railway Online Ticket
অনলাইনে ট্রেনের টিকেট বুকিং খুব সোজা আর ঝামেলামুক্ত।

দ্রুতগতির সিল্কসিটি ট্রেনের ভিডিও

ঢাকা-রাজশাহী রুটের সিল্কসিটি এক্সপ্রেস ট্রেনকে বাংলাদেশের দ্রুততম ট্রেন বলে মনে করা হয়। এই ভিডিওতে সিল্কসিটি এক্সপ্রেসকে ছুটতে দেখা যাচ্ছে রাজশাহী থেকে ঢাকার দিকে।

শুভযাত্রা! 🌺

ঢাকা থেকে রাজশাহী ট্রেনের সময়সূচি ও টিকেটের মূল্য সম্পর্কে আপাতত এ পর্যন্তই। আপনি যদি আপনার ফিরতিপথের তথ্য জানতে চান তাহলে রাজশাহী থেকে ঢাকা ট্রেনের সময়সূচি ও ভাড়া বিষয়ক নিবন্ধটি একনজর দেখে নিন। আপনার যদি এই সম্পর্কে আরও কিছু জানার বা বলার থাকে, তবে আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করুন। এতক্ষণ পর্যটন ডটকমকে সঙ্গ দেবার জন্যে আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।

আপনার যাত্রা আনন্দময় হোক!

পর্যটন একটি বাংলাদেশি ভ্রমণ ওয়েবসাইট। এর কাজ হলো পর্যটককে পথ দেখানো। প্রথমে বাংলাদেশ, ক্রমশ এশিয়া এবং তারপর সারা দুনিয়ার সুন্দর সুন্দর পর্যটনকেন্দ্রগুলির তথ্য ও ছবি এক জায়গায় জড়ো করে আমরা গড়ে তুলতে চাই একটি ভ্রমণ বিশ্বকোষ—ট্যুরপিডিয়া, যেন নিসর্গ আর ইতিহাসের টানে গৃহত্যাগী মানুষেরা এ থেকে পান পথনির্দেশ, আর ঘুরকুনো কুঁড়েরা কুড়িয়ে নিতে পারে বেরিয়ে পড়বার জন্যে একমুঠো উৎসাহ। আপনার ঘরের কাছেই হয়তো অবহেলায় অগোচরে পড়ে আছে ঘুরে দেখার মতো চমৎকার কোনো জায়গা কিংবা ইতিহাসের সাক্ষী হয়ে রয়েছে শত শত বছরের পুরনো কোনো মসজিদ, আপনি কি তার কথা আমাদেরকে জানাবেন যাতে আমরা সেটা দুনিয়ার সামনে তুলে ধরতে পারি?

Was this article helpful?
YesNo

Leave a Comment

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Scroll to Top